শিশুদের জন্য দীনি প্রশ্নোত্তর : ২ | মানসূর আহমাদ

শিশুদের-প্রশ্নোত্তর

১ম পর্বের পর
প্রশ্ন—১৫: তোমার নবি কে?
উত্তর: আমার নবি মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম)।

প্রশ্ন—১৬: ‘মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ’-এর অর্থ ও মর্ম কী?
উত্তর: মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ-এর অর্থ হচ্ছে, মুহাম্মাদ আল্লাহর রাসুল এবং এর মর্ম হচ্ছে, আল্লাহ তাআলা মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে সমগ্র মানবজাতির জন্য বাশির ও নাযির তথা (জান্নাতের) সুসংবাদাতা ও (জাহান্নামের ব্যাপারে) সতর্ককারীরূপে প্রেরণ করেছেন।

প্রশ্ন—১৭: আমাদের নবির নাম, তাঁর বাবার নাম ও তাঁর দাদার নাম কী?
উত্তর: আমাদের নবির নাম মুহাম্মাদ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম), তাঁর বাবার নাম আবদুল্লাহ ও তাঁর দাদার নাম আবদুল মুত্তালিব।

প্রশ্ন—১৮: সকল মানুষের চেয়ে কার প্রতি তোমার ভালোবাসা বেশি থাকা আবশ্যক?
উত্তর: রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের প্রতি।

প্রশ্ন—১৯: নবি কারিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কখন কোথায় জন্মগ্রহণ করেন?
উত্তর: নবি কারিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমুল ফিল তথা হস্তিবাহিনীর ঘটনার বছর মক্কায় জন্মগ্রহণ করেন।

প্রশ্ন—২০: আল্লাহ তাআলা যখন নবিজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের কাছে ওহি প্রেরণ করেন, তখন তাঁর বয়স কত বছর ছিল?
উত্তর: তখন তাঁর বয়স ছিল চল্লিশ বছর।

প্রশ্ন—২১: নবুওত প্রাপ্তির পর হিজরতের পূর্বে নবিজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কত বছর মক্কায় ছিলেন?
উত্তর: তেরো বছর।

প্রশ্ন—২২: রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কোথায় হিজরত করেছিলেন?
উত্তর: মদিনায়।

প্রশ্ন—২৩: হিজরতের পর রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মদিনায় কত বছর বেঁচে ছিলেন?
উত্তর: দশ বছর।

প্রশ্ন—২৪: উম্মাহাতুল মুমিনিন (মুমিনদের মা) কারা?
উত্তর: রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের স্ত্রীগণ।

প্রশ্ন—২৫: রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কখন, কোথায় ইন্তেকাল করেন? সে সময় তাঁর বয়স কত বছর ছিল?
উত্তর: রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম হিজরতের দশ বছর পর মদিনায় ইন্তেকাল করেন। সে সময় তাঁর বয়স হয়েছিল তেষট্টি বছর।

প্রশ্ন—২৬: হাদিসটি পূরণ কর
قال رسول الله صلى الله عليه وسلم: مَنْ صَلَّى عَلَيَّ صَلَاةً…
(অর্থ: যে ব্যক্তি আমার ওপর একবার দরুদ পাঠ করে…)
উত্তর:
صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ بِهَا عَشْرًا.
(অর্থ: আল্লাহ তাআলা তার ওপর দশবার রহমত বর্ষণ করেন।)

[চলবে ইনশাআল্লাহ]

Facebook Comments