Category

আকিদা

Category

খেলাফত ধ্বংস হওয়ার পর থেকে শাতেম ইস্যুতে মুসলমানদের রক্তক্ষরণের অধ্যায় দীর্ঘ থেকে দীর্ঘই হচ্ছে। কতক মর্দে মুজাহিদের জীবন উৎসর্গ করা কিছু আক্রমণ ছাড়া উম্মাহের শান্তনা খুঁজার আর কিছুই নেই।(আল্লাহ রক্তক্ষরণের এই দীর্ঘ অধ্যায় দ্রুত শেষ করে মুসলিম উম্মাহকে দ্রুত তার পূর্বের অবস্থানে যাওয়ার তাওফিক দান করুক। আমীন। )যখন শাতেম ইস্যু আসে তখনই কিছু ভাই বুঝে হোক, বা না বুঝে হোক, ফিকহে হানাফিকে ক্রিটিসাইস করেন। কেউ কেউ তো মূল মাযহাব না…

মুফতি সালমান মানসুরপুরি দা.বা.। হযরত হুসাইন আহমেদ মাদানী রহ.-র মেয়ের ঘরের নাতি । দারুল উলুম দেওবন্দের উস্তাদ ক্বারি উছমান সাহেবের সুযোগ্য সন্তান। বর্তমান ভারতের শাহী মুরাদাবাদের প্রধান মুফতি এবং সময়ের সাড়া জাগানো ফাতওয়া গ্রন্থ ‘কিতাবুন নাওয়াযিল’-র লেখক। উক্ত কিতাবে শিয়াদের বিষয়ে বেশকিছু ফতোয়া আছে সেখান থেকে কিছু ফতোয়ার চুম্বকংশ এখানে তুলে ধরা হলো। এক. শিয়াদের যে দল এই বিশ্বাসগুলো রাখে যেমন, ১. কুরআন বিকৃত হয়ে গেছে। ২. শায়খাইন তথা হযরত…

প্রশ্ন : শিয়াদের অপকর্ম তো স্পষ্ট। কিন্তু তাদের কাফের ফতোয়া দেওয়ার কারনগুলো কী কী ? একটু বিস্তারিত বললে উপকৃত হবো। এবং তাদের জবাইকৃত পশু ও তাদের সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হওয়া কী বৈধ? উত্তর : বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম। শিয়াদের কুফরীর কারণ অসংখ্য। তার মধ্যে সকল মানুষের নিকট যে বিষয়গুলো প্রসিদ্ধ এবং শিয়াদের প্রায় সব কিতাবে যে আকিদাগুলো লিপিবদ্ধ আছে তা নিম্নরূপ- ১. বর্তমান কুরআন বিকৃত। ২. আল্লাহ তায়ালার ব্যাপারে ‘আকিদায়ে বাদাহ’।…

ফেমিনিজম তথা নারীবাদ বলতে শরীয়তে কিছু নেই। এর আগা থেকে গোড়া পর্যন্ত সবই ভ্রান্তি। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে তদের গোমরাহ বলা গেলেও কাফের বলা যায় না। আর কিছু কিছু ক্ষেত্রে শরীয়তের অকাট্য ও সুস্পষ্ট কোন বিষয়কে অস্বীকার করা, অভিযোগ করা ও বিদ্রুপ করার কারণে তাদের ঈমান চলে যাবে। বিয়ে করে থাকলে সাথে সাথে বিয়ে ভেঙ্গে যাবে। ঐ অবস্থায় বাচ্চা হলে তা হারামযাদা হবে! এবং তাওবা না করলে ইসলামী রাষ্ট্রে তাকে…

অনুবাদ : আবূ উসামা জাফর ইকবাল বর্তমান শিয়াদের কুফরের বিষয়টি একেবারেই সুস্পষ্ট। প্রথম যুগের শিয়ারা তাদের আকীদা-বিশ্বাস গোপন করে রাখতো। তাদের কিতাবাদি আহলুস্ সুন্নাহ ওয়াল জামা’আতের অনেক বড় বড় আলেম সরাসরি প্রত্যক্ষ করেননি। যার কারণে তারা ব্যাপকভাবে শিয়াদের কাফির বলতেন না। কিন্তু বর্তমানে তাদের কিতাবাদিগুলো প্রকাশ পেয়েছে এবং তাদের আকিদা বিশ্বাসের বিষয়গুলোও মানুষের কাছে স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। তাই এ যুগের আলিমগণ বর্তমান শিয়াদেরকে স্বাভাবিকভাবে কাফির বলেন। (দেখুন, ইমদাদুল ফাতাওয়া,…

আমার ভায়েরা! শিয়াদের বিষয়ে ওলামায়ে কেরামের ফতোয়া এটা কোনো নতুন বিষয় নয়৷ মাওলানা হক নেওয়াজ শহিদ রহ. শিয়াদের বাজারে, রাস্তা-ঘাটে, বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে ও চৌরাস্তায় প্রকাশ্যে কাফের বলেছে। এবং এই বিষয়ে তার কাছে অনেক মজবুত দলিল ছিলো। বিষয়টি তাঁর ইমানী গায়রাতের পরিচয় ছিলো। আর তিনি কোনো নতুন কাজ করেননি। তিনি এমন কোনো দলকে কাফের বলেননি, যারা আসলেই কাফের নয়। শিয়াদের কুফর কুরআন দ্বারা প্রমাণিত। আমার উস্তাদগণ উপস্থিত আছেন। ইমাম…

‘মুরতাদ’ শব্দের সাথে আমাদের অধিকাংশেরই কমবেশি পরিচিতি থাকলেও ‘যিন্দিক’ ও ‘মুলহিদ’ শব্দদুটির সাথে পরিচয় আছে এমন ব্যক্তির সংখ্যা একেবারেই নগণ্য। আবার যারা শব্দদুটি সম্পর্কে অবগত তাদের অনেকেই এর সঠিক অর্থ জানেন না বা প্রয়োগ করতে গিয়ে তালগোল পাকিয়ে ফেলেন।তাই এই তিন পরিভাষা সম্পর্কে সামান্য আলোকপাত করার চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ। মুরতাদ : কোন প্রাপ্তবয়স্ক মুসলিম স্বেচ্ছায় সজ্ঞানে অপব্যাখ্যা না করে সরাসরি কোন সুস্পষ্ট কুফরী কথা-কাজে লিপ্ত হলে কিংবা ইসলাম ত্যাগ করে…

মুজেযা কি? ‘معجزة’ মুজেযা শব্দটি ‘عجز’ থেকে নির্গত। অর্থ অক্ষম ও অপারগ। আর ‘معجزة’  হলো অক্ষমকারী। যা قدرة বা সক্ষমতার বিপরীতে আসে।[1] পরিভাষায় মুজেযা বলা হয়: الخارق للعادة المقرون باالتحدى  ‘অভ্যাস বহির্ভূত এমন অলৌকিক বিষয়, যা চ্যালেঞ্জের বিপরীতে আসে।[2] ইবনে হামদান বলেন: المعجزة هي ما خرق العادة من قول أو فعل إذا وافق دعوى الرسالة وقارنها وطابقها على جهة التحدي ابتداء بحيث لا يقدر أحد عليها ولا على مثلها، ولا…

ইসলামে আকিদা-বিশ্বাস সহিহ করা এবং তাতে অটল থাকার গুরুত্ব অপরিসীম। যাদের আকিদা-বিশ্বাস সহিহ তারাই হকপন্থী, তারাই জান্নাতি। আর যারা হকপন্থী নয়, তারাই জাহান্নামি। রাসুল (সা.)-এর নিম্নোক্ত হকপন্থী বাতিলপন্থীদের সম্পর্কে বলা হয়েছে, تفرقت الیهود علی احدی و سبعین فرقة او اثنتین و سبعین فرقة و النصاری مثل ذالک وتفرق امتی علی ثلاث وسبعین فرقة وفی روایة کلهم فی النار الا واحدة – قالوا من هی یا رسولله؟ قال ما انا علیه…

আকিদাহ(العقيدة) শব্দটি উকদাহ(العقدة) শব্দ হতে নির্গত।  যার অর্থ বন্ধন বা গিঁঠ।  সেমতে আকীদাহ অর্থ দৃঢ় বিশ্বাস, যার আলোকে মানুষের জীবন পরিচালিত হয়। দৃঢ় বিশ্বাসী মানুষের সংজ্ঞায় আল্লাহ বলেছেন, اٰمَنَّا بِهِ كُلٌّ مِنْ عِنْدِ رَبِّنَا “আমরা তার উপর ইমান এনেছি, সবকিছুই আমাদের প্রতিপালকের পক্ষ থেকে”(সূরা আলে-ইমরান) إِنَّمَا الْمُؤْمِنُونَ الَّذِينَ آمَنُوا بِاللَّهِ وَرَسُولِهِ ثُمَّ لَمْ يَرْتَابُوا وَجَاهَدُوا بِأَمْوَالِهِمْ وَأَنفُسِهِمْ فِي سَبِيلِ اللَّهِ ۚ أُولَـٰئِكَ هُمُ الصَّادِقُونَ (আল হুজরাত – ১৫) তারাই মুমিন,…

Pin It
error: Content is protected !!