Category

আব্দুল্লাহ বিন বশির

Category

খেলাফত ধ্বংস হওয়ার পর থেকে শাতেম ইস্যুতে মুসলমানদের রক্তক্ষরণের অধ্যায় দীর্ঘ থেকে দীর্ঘই হচ্ছে। কতক মর্দে মুজাহিদের জীবন উৎসর্গ করা কিছু আক্রমণ ছাড়া উম্মাহের শান্তনা খুঁজার আর কিছুই নেই।(আল্লাহ রক্তক্ষরণের এই দীর্ঘ অধ্যায় দ্রুত শেষ করে মুসলিম উম্মাহকে দ্রুত তার পূর্বের অবস্থানে যাওয়ার তাওফিক দান করুক। আমীন। )যখন শাতেম ইস্যু আসে তখনই কিছু ভাই বুঝে হোক, বা না বুঝে হোক, ফিকহে হানাফিকে ক্রিটিসাইস করেন। কেউ কেউ তো মূল মাযহাব না…

সকালে অফিসে যাবেন হাতে সময় খুব অল্প। মাখনে মাখানো পাউরুটি অর্ধেক মুখে আর অর্ধেক হাতে নিয়ে ওয়ার্ড্রপের উপর হাত দিয়ে দেখেন বাইকের চাবিটি নেই! স্পষ্ট মনে আছে রাতে এখানেই রেখেছেন। শুধু তাইনা প্রতিদিন এখানেই রাখেন কিন্তু আজ পাচ্ছেননা। স্ত্রীকে ডাক দিয়ে জিজ্ঞাসা করলেন সে দেখেছে কি না। সেও দেখেনি। দুজন মিলে এদিক-সেদিক খুজে বেঁড়াচ্ছেন কিন্তু পাচ্ছেননা! অফিসে যেতে হবে দ্রুত। কি মহা মুসিবত! রান্না ঘরের মস্ত ঝামেলা। একটানা কাজ করে…

মুফতি সালমান মানসুরপুরি দা.বা.। হযরত হুসাইন আহমেদ মাদানী রহ.-র মেয়ের ঘরের নাতি । দারুল উলুম দেওবন্দের উস্তাদ ক্বারি উছমান সাহেবের সুযোগ্য সন্তান। বর্তমান ভারতের শাহী মুরাদাবাদের প্রধান মুফতি এবং সময়ের সাড়া জাগানো ফাতওয়া গ্রন্থ ‘কিতাবুন নাওয়াযিল’-র লেখক। উক্ত কিতাবে শিয়াদের বিষয়ে বেশকিছু ফতোয়া আছে সেখান থেকে কিছু ফতোয়ার চুম্বকংশ এখানে তুলে ধরা হলো। এক. শিয়াদের যে দল এই বিশ্বাসগুলো রাখে যেমন, ১. কুরআন বিকৃত হয়ে গেছে। ২. শায়খাইন তথা হযরত…

প্রশ্ন : শিয়াদের অপকর্ম তো স্পষ্ট। কিন্তু তাদের কাফের ফতোয়া দেওয়ার কারনগুলো কী কী ? একটু বিস্তারিত বললে উপকৃত হবো। এবং তাদের জবাইকৃত পশু ও তাদের সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হওয়া কী বৈধ? উত্তর : বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম। শিয়াদের কুফরীর কারণ অসংখ্য। তার মধ্যে সকল মানুষের নিকট যে বিষয়গুলো প্রসিদ্ধ এবং শিয়াদের প্রায় সব কিতাবে যে আকিদাগুলো লিপিবদ্ধ আছে তা নিম্নরূপ- ১. বর্তমান কুরআন বিকৃত। ২. আল্লাহ তায়ালার ব্যাপারে ‘আকিদায়ে বাদাহ’।…

রাতের গভিরতা যত হয়, মাওলা পাকের কাছে গুনাহ মাফ করিয়ে নেওয়াটা ততই সহজ হয়৷ নির্জনে বান্দার কাকুতিমিনতি আল্লাহ খুব পছন্দ করেন। সমস্যায় জর্জরিত জীবনের যেকোনো প্রয়োজন পুরো যেনো বান্দাহ সে সময় করে নেই, তাই নিজেই বান্দাকে ঢাকতে থাকেন। এত গুরুত্বপূর্ণ সেই সময়গুলো খামখেয়ালি আর অলসতায় আমরা কাটিয়ে দেয়৷ রাতের একটি বড় সময় ফেসবুক,মেসেঞ্জার, ওয়াটসএপ আর ইউটিউবে কাটিয়ে দিতে পারি৷ ফেসবুকে দোয়া চেয়ে পোষ্ট আর ডিপ্রেশনের স্ট্যাটাস দিয়ে কিছু উপদেশ আর…

এক. সময়টা ১৯২৬ সাল। সকালের মিহি হাওয়ায় বাড়ির আঙ্গিনায় বসে আসেন শাহ সাহেব কাশ্মীরী রহ.। তন্ময় হয়ে কি যেনো ভাবছেন। জীবনের এই সন্ধিক্ষণে কি এক পেরেশানি যেনো ভিতরটা তার কুড়ে কুড়ে খাচ্ছে৷ বেশকিছুদিন যাবৎই শাহ সাহেবকে এমন দেখা যাচ্ছে। হঠাৎ করে কিসের যেনো এক ভাবনায় হারিয়ে যান৷তখন উপরের অবয়ব থেকেই বুঝা যায় ভিতরের এক জ্বালায় তিনি পুড়ে যাচ্ছেন৷ জীবনের পুরোটা সময় কাটিয়ে দিয়েছেন হাদিসে নববীর খেদমতে। ‘ওয়াবিহি হাদ্দাসানা’ ও ‘ক্বলা…

একটু ভেবে দেখেছেন—ছোট্টো একটি বাক্য আপনার জীবনে কতটা সৌভাগ্য বয়ে আনতে পারে? সেটা কি? তার আগে একটি বিষয় বলুন তো, যদি কখনো শুনতে পান, দুনিয়ার মধ্যে আপনার কোনো একান্ত পছন্দের মানুষ যিনি সম্মান মর্যাদায় এত উঁচু যে যাকে শুধু দূর থেকে ভালোবাসতে পারাটাই আপনার জন্যে গর্বের ও গৌরবের বিষয়। যার ভালোবাসা প্রকাশ্যে বা গোপনে, একান্ত আলোচনায় বা ফেসবুকে বলতে আপনার আনন্দ হয়। সম্ভব না, কিন্তু মনের অজান্তেই জীবনে একটি বার…

আমার ভায়েরা! শিয়াদের বিষয়ে ওলামায়ে কেরামের ফতোয়া এটা কোনো নতুন বিষয় নয়৷ মাওলানা হক নেওয়াজ শহিদ রহ. শিয়াদের বাজারে, রাস্তা-ঘাটে, বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে ও চৌরাস্তায় প্রকাশ্যে কাফের বলেছে। এবং এই বিষয়ে তার কাছে অনেক মজবুত দলিল ছিলো। বিষয়টি তাঁর ইমানী গায়রাতের পরিচয় ছিলো। আর তিনি কোনো নতুন কাজ করেননি। তিনি এমন কোনো দলকে কাফের বলেননি, যারা আসলেই কাফের নয়। শিয়াদের কুফর কুরআন দ্বারা প্রমাণিত। আমার উস্তাদগণ উপস্থিত আছেন। ইমাম…

‘মেয়েরা চাইলে তাদের চেহারা খুলে রাখবে। ঢেকে রাখা ভালো, বাকি না ঢাকলে কোনো সমস্যা নেই।’ এই বিষয়ে বয়ানের মঞ্চ থেকে ফেসবুক পাড়ায় বেশ জোরেশোরে কিছু ভাই কাজ করে যাচ্ছেন। অথচ এইগুলো তো বেশ পুরোনো ইস্যু। আমাদের আকাবিররা এই বিষয়ে যতধরনের প্রশ্ন, আপত্তি অপব্যাখ্যা আছে তার সবগুলোর জবাবে দিস্তার পর দিস্তা লেখে গেছেন। শুধু মাসিক আলকাউসারে এই বিষয়ে আমারই প্রায় দশটার কাছাকাছি বড় বড় প্রবন্ধ নজরে পড়েছে। আমার দুঃখ হলো—যারা চেহারা…

মানুষের একটি স্বভাবজাত বিষয় হলো, সে তার অনুসরণীয় ব্যক্তির জীবনাচারকে নিজের ভিতর ধারণ করতে চায়। জীবনের চলার পথে ঐ ব্যক্তির জীবন থেকে নিজের জীবনে চলার শক্তি খুঁজে পায়। আর তা থেকে খুঁজে নেয় জীবন চলার পাথেয়। এটা শুধু সাধারণ মানুষের মাঝেই নয় বরং আল্লাহ্‌ তায়ালাও নবিদেরকে অপর নবির ঘটনা শুনিয়ে এগিয়ে চলার শক্তি যোগাতেন। আল্লাহ্‌ তায়ালা বলেন, ‘হে নবি আমি আপনার নিকট নবিগণের ঘটনাসমুহ বর্ণনা করে আপনার অন্তরে শক্তি যোগাই।…

Pin It
error: Content is protected !!